রবিবার , ১৩ই জুন, ২০২১ ইং , বাংলা: ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , হিজরি: ১লা জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

মঠবাড়িয়ায় ৪ দাবিতে স্বাস্থ্য সহকারীদের কর্মবিরতি ও অবস্থান

মঠবাড়িয়ায় ৪ দাবিতে স্বাস্থ্য সহকারীদের কর্মবিরতি ও অবস্থান

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় বেতন স্কেল, টেকনিক্যাল পদমর্যাদাসহ চার দাবিতে ১৫ দিন ধরে কর্মবিরতি ও অবস্থান কর্মসূচীতে রয়েছে উপজেলায় কর্মরত মাঠ পর্যায়ের মোট ৮৫ জন (স্বাস্থ্য সহকারী, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য পরিদর্শকগণ)।

দাবি পূরণের প্রজ্ঞাপন না হওয়া পর্যন্ত কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশনায় এ কর্মবিরতি অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন হেলথ্ এসিস্ট্যান্ট এসোসিয়েশন মঠবাড়িয়া উপজেলা শাখার সভাপতি ও দাবী বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক জনাব মোঃ নাসির উদ্দীন।

বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) কর্মবিরতির ১৫ তম দিনে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভবনের সামনে উপজেলায় কর্মরত এ ৮৫ জন মাঠ পর্যায়ের স্বাস্থ্যকর্মীদের কর্মবিরতি ও অবস্থান কর্মসূচীতে অটল থাকতে দেখা যায়। সংগঠনটির নেতাকর্মীরা দাবি করেন, নিয়োগ বিধি সংশোধনসহ ক্রমানুসারে স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীদের বেতন গ্রেড ১৪, ১৫ ও ১৬ তম গ্রেড থেকে যথাক্রমে ১১, ১২ ও ১৩ তম গ্রেডে উন্নীতকরণ করতে হবে।

উপজেলা হেলথ্ এসিস্ট্যান্ট এসোসিয়েশনের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আয়েশ সিদ্দিকা লাইজু ও উপস্থিত সদস্যদের মধ্যে তাজউদ্দিন আহম্মেদ রুবেল,সাবিনা ইয়াসমিন সহ অন্যান্য সদস্যরা বলেন, স্বাস্থ্য সহকারী ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় দেশ থেকে বসন্ত নির্মূল ও ম্যালেরিয়া রোগ নেই। সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি (ইপিআই) এককভাবে স্বাস্থ্য সহকারীদের উপর ন্যস্ত করা হয়।

টিকাদান কর্মসূচির মাধ্যমে স্বাস্থ্য সহকারীগণ বর্তমানে ১০টি মারাত্মক সংক্রামিত রোগের (শিশুদের যক্ষা, পোলিও, ধনুষ্টংকার, হুপিংকাশি, ডিপথেরিয়া, হেপাটাইটিস-বি, হিমোফাইলাস ইনফুয়েঞ্জা, নিউমোনিয়া ও হামে-রুবেলা) টিকা প্রদান করে দেশ গঠনে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা রাখলেও আমাদের খবর কেউ রাখে না।

আমরা নানা ভাবে বৈষম্যের শিকার। প্রজাতন্ত্রের পদোন্নতি বিধি অনুযায়ী একজন সরকারি কর্মকর্তা বা কর্মচারী ৩/৫ বছর পরপর পদোন্নতি পান। কিন্ত একজন স্বাস্থ্য সহকারী ২০ থেকে ২৫ বছরে পদোন্নতি পেয়ে সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক হতে পারে না। যদিও পদোন্নতি পান তাহলে স্বাস্থ্য পরিদর্শক হতে কমপক্ষে পাঁচ থেকে সাত বছর অপেক্ষা করতে হয়। অনেকে এমন সময় পদোন্নতি পান, যখন চাকরির বয়স বাকি থাকে মাত্র পাঁচ থেকে ছয় মাস। তবে পদোন্নতি হলেও বেতন বাড়ে না এক পয়সাও। উপরন্তু বদলি করা হয় অন্য জেলা বা উপজেলায়।

এমন আরো খবর:

error: লেখা সংরক্ষিত!