রবিবার , ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , বাংলা: ১লা পৌষ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , হিজরি: ১৭ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

ইন্দুরকানী বুলবুলের তান্ডব ৮ শতাধিক ঘর বিধ্বস্তগাছপালার ব্যাপক ক্ষতি আহত ১০

ইন্দুরকানী বুলবুলের তান্ডব ৮ শতাধিক ঘর বিধ্বস্তগাছপালার ব্যাপক ক্ষতি আহত ১০

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি | ইন্দুরকানীতে বুলবুলের আঘাতেশিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ ৮ শতাধিক বাড়িঘর বিধ্বস্ত গাছ পালার ব্যাপক ক্ষতি এবং শিশু সহ ১০জনআহত হয়েছে। এছাড়া বিদ্যুত লাইনের উপর গাছ পরে তার ছিড়ে বিদ্যুত লাইন বিচ্ছিন্ন সহ সড়কে গাছ পরে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। শনিবার থেকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে ব্যাপক বৃষ্টিপাত শুরু হয়। রোববার বুলবুলের প্রভাবে এ উপজেলায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। উপজেলার তিনটি ইউনিয়নে ৮ শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত, হাজার হাজার গাছ পালা ভেঙ্গে গেছে, এছাড়া বিদ্যুত লাইনের উপর গাছ পরে তার ছিড়ে বিদ্যুত বিচ্ছিন্ন সহ সড়কে গাছ পরে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।ঝড়ে উপজেলার দিঘিরপাড়র জামেয়াই ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসার একটি টিনসেড ভবন বিধ্বস্ত হয়েছে। গাছ পড়ে পত্তাশী জনকল্যাণ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ভবানীপুর বিজিএস দাখিল মহিলা মাদ্রাসা বিধ্বস্ত হয়ে যায় এবং উত্তর-পশ্চিম কলারণ আজাহার আলী দাখিল মাদ্রাসা, পত্তামী এস দাখিল মাদ্রাসা আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।এদিকে প্রবল ঝড়ের কারণে সবজি ক্ষেত,ধান ক্ষেত ও কলা ক্ষেতে মাছের ঘেরের ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে। উপজেলার চাড়াখালী গুচ্ছগ্রাম, টগড়া, পাড়েরহাট আবাসন, সাঈদখালী আবাসন, চরবলেশ^র, খোলপটুয়া, ইন্দুরকানী, কালাইয়া গ্রাম বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর আগে শনিবার দুপুর থেকে উপজেলার ১৯টি ঘর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্রে প্রায় ৮ হাজার মানুষকে উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয়দের মাধ্যমে শুকনা খাবার ও বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করা হয়।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মুহাম্মদ আল-মুজাহিদ জানান, উপজেলার প্রায় ৫ শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত, বিদ্যু লাইন বিচ্ছিন্ন ও গাছপালার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গাছ পড়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার কারনে বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে ত্রান পৌছাতে বেগ পেতে হচ্ছে|

এমন আরো খবর:

News Bottom