রবিবার , ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , বাংলা: ১লা পৌষ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , হিজরি: ১৭ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

ত্রিমুখি অবস্হানে পিরোজপুরের রাজনীতি !- এফ এম এনামুল হক লিটু

ত্রিমুখি অবস্হানে পিরোজপুরের রাজনীতি !- এফ এম এনামুল হক লিটু

পিরোজপুরের সমসাময়িক রাজনীতি নিয়ে পিরোজপুর টাইস এর সাথে একান্ত সাক্ষাৎকার দিয়েছেন পিরোজপুরের কৃতি সন্তান বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নুর কর্পোরেশন এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর এফ এম এনামুল হক লিটু

পিরোজপুরের রাজনীতি ও বর্তমান পরিস্তিতি নিয়ে আলোচনার বিশেষ অংশ তুলে ধরা হল:

যারা রাজনীতি করে তাদের প্রথমই দেশ প্রেমিক হতে হবে। জন্ম স্হানকে ভালবাসতে হবে।এলাকার সাধারন মানুষকে ভালবাসতে হবে শুধু নেতাকর্মী এবং এলিট শ্রেনীদের নিয়ে রাজনীতি করলে হবেনা।

রাজনীতিতে সবচেয়ে বেশী প্রোয়োজন হচ্ছে জনগন। যদি জনগন থেকে বিছিন্ন থাকেন তাহলে রাজনীতি কিভাবে করবেন।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে দেশের রাজনৈতিক পরিস্তিতি অশান্ত হয়ে উঠেছে, পিরোজপুর এর বাইরে নয়। পর পর দুটো ঘটনা শেখ এ্যানি রহমানের গাড়ি বহরে হামলা আমাদের ভাবিয়ে তুলেছেন তবে এ হামলা একটি সাজানো নাটক বলে মনে করেছেন রাজনৈতিক নেতা ও সচেতন নাগরিকগন।

তিনি আরো বলেন পিরোজপুর আওয়ামীলীগ পরিবার এখন ত্রিমুখি অবস্হান। নেতাকর্মী নিয়ে একটি শক্ত অবস্হানে আছেন পৌর মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক তার বহরে যোগ দিয়েছেন বর্তমান সংসদ আলহাজ্ব এ.কে. এম. এ আউয়াল এর অনুসারীরা।বর্তমানে পৌর মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক নেতাকর্মীদের আগলে রাখেন।নেতাকর্মীদের সুখে-দু:খে পাশে থাকেন।মেয়র মহোদয় তার রাজনৈতিক জ্ঞান দিয়ে নেতা কর্মীদের আগলে রাখছেন।

এমপি আউয়াল তার ব্যক্তি স্বার্থ ও পরিবারের সদস্যদের কঠোর মনোভাবের কারনে নেতা-কর্মীরা আজ তাকে অন্য চোখে দেখে।তবে বর্তমান সংসদ সদস্য যেহেতু তার অবস্হান যে খুব খারাপ তা বলা যাবেনা ।তাকে সুদরাতে হবে তার পরিবর্তন আনতে হবে নেতাকর্মীসহ সাধারন জনগনের ভাল মন্দ বুজতে হবে।

অন্যদিকে বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব সাবেক বার কাউন্সিল এর সাধারন সম্পাদক আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যড শ ম রোজাউল করিম পরিছন্ন রাজনীতিবিদ হিসেবে একটি অবস্হান ধরে রেখেছেন। পিরোজপুরের রাজনীতিতে তার একটা নিরব অবস্হান আছে এবং সাধারন জনগণ তাকে পরিছন্ন লিডার হিসেবে মনে করেন ।

শেখ এ্যানি হটৎ পিরোজপুরের রাজনীতিতে ভাগ বসিয়েছেন পিরোজপুরের রাজনীতিতে তার একফোটা অবদান নেই বললেই চলে। তার মরহুম পিতা সংসদ সদস্য ছিলেন সেই পুরনো ইতিহাস টেনে এনে পিরোজপুরের রাজনীতি করা যাবেনা । কে কার চাচী এটা জনগন জানতে চায়না জনগন জানতে চায়,বুজতে চায় তার রাজনৈতিক জ্ঞান কতটুকো,মাঠে তার অবস্হান কি,দলে তার পজিশন কি আমি যতটুকু জানি আওয়ামীলীগ ও তার অংগসংগঠনে তার কোন পদ নেই যদি থেকেও থাকে তা গুরুত্বপূর্ন না।

মাঠ পর্যায় দলীয় নেতাকর্মী যদি না থাকে এলাকায় বসন্তের কোকিলের মত মাঝে মধ্যে অবস্হান করলে রাজনীতি করা হয়না রাজনীতি করতে হলে জনগনের পাশে থাকতে হবে।ঘুম থেকে যদি কোন রাজনৈতিক নেতা প্রতিদিন বিকেল তিনটায় জাগে তাহলে জনগণের সেবা কিভাবে করবেন এটা আমার বুঝে আসেনা ।আমার জানা মতে পিরোজপুরের অনেক সাধারন মানুষ এবং দলীয় নেতাকর্মী এ্যানি রহমান এর ঢাকায় বাসায় গিয়েছেন কিন্তু দেখা করতে পারে নাই কারন তিনি ঘুম থেকে ওঠেন তিনটায় এবং তার অনুসারীরা বিভিন্ন দল থেকে আসছে এবং ক্ষমতায় না আসতেই ক্ষমতা দেখাবার চেষ্টা করছে এটা ভাল দিক নয়। তাই তার অবস্হান এখন জনগনও বুজতে পারছে।

তিনি আরো বলেন বিএনপির রাজনীতিতে জোটের একটা অংশ আছে পিরোজপুরে তাই এখানে জোটের প্রার্থীর সম্ভাবনা বেশী।(সংক্ষেপ)

সাক্ষাৎকার নিয়েছেন পিরোজপুর টাইমস এর রির্পোটার আব্দুর রাজ্জাক।

 

 

 

এমন আরো খবর:

News Bottom